StudyWithGenius

Class 9 Model Activity Task Part 6 September New 2021 | নবম শ্রেণী মডেল অ্যাক্টিভিটি | Bengali,English,History Geography

Class 9 Model Activity Task Part 6

Class 9 All Subject Model Activity Task Part 6

class 9 model activity task part 6, class 9 model activity task part 6 answer, class 9 model activity task part 6 bengali, , class 9 model activity task part 6 download, class 9 model activity task part 6 english, , class 9 model activity task part 6 geography, class 9 model activity task part 6 history, class 9 model activity task part 6 in Bengali, class 9 model activity task part 6 life science, class 9 model activity task part 6 math, class 9 model activity task part 6 notes, class 9 model activity task part 6 of science,  class 9 model activity task part 6 physical science,, class 9 model activity task part 6 question answer,  class 9 model activity task part 6 wbbse, class 9 model activity task part 6 west bengal board, class 9 model activity task part 6 with answers

WBBSE West Bengal Board of Secondary Education Class 9 All Subject Part 6 Model Activity Task Solution in Bengali . New Model Activity Task of Class 9 September Answers PDF or Text based answers.

Class 9 Model Activity Task Bengali Part 6 September

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

নবম শ্রেণি

বাংলা

১.নীচের প্রশ্নগুলির উত্তর নিজের ভাষায় লেখো :

১.১ বর্তমান যুগের ইংরেজি ও বাংলা আত্মনির্ভরশীল নয়।’

   – প্রাবন্ধিক কোন্ অর্থে ‘আত্মনির্ভরশীল’ শব্দের প্রয়োগ ঘটিয়েছেন? বর্তমান যুগের ইংরেজি ও বাংলাকে কেন তিনি  আত্মনির্ভরশীল মনে করেননি?

উত্তর : মনের কোনো নতুন চিন্তা বা অনুভূতি প্রকাশের জন্য নতুন শব্দের প্রয়োজন হলে সংস্কৃত ভাষার মতো নিজস্ব শব্দভাণ্ডাঁবে অনুসন্ধান না কবে বাংলা ও ইংরেজি অন্য ভাষা থেকে শব্দ গ্রহণ করে। এই প্রসঙ্গেই লেখক সৈয়দ মুজতবা আলী আলোচ্য উক্তিটি করেছেন।

নতুন কোনো ভাবনা-চিন্তা বা অনুভূতি প্রকাশের জন্য নতুন কোনো শব্দের প্রয়োজন দেখা দিলে ইংরেজি বা বাংলা ভাষা তাদের নিজের শব্দভাণ্ডারে অনুসন্ধান না কবে ভিন্ন ভিন্ন ভাষা থেকে শব্দ ধার করেছে এবং বর্তমানেও করছে। পাঠান মোগল যুগে আইন আদালত, থাজনা -থারিজ নতুনরূপে দেখা দেওয়ায় বাংলা ভাষা ও ইংরেজি ভাষা, আরবি এবং ফারসি থেকে অনেক শব্দ গ্রহণ করেছে। ফলে ইংরেজি ও বাংলা ভাষাকে লেখক আত্মনির্ভরশীল ভাষা বলে গণ্য করেননি।

১.২ ‘আমি এই ঘাসে বসে থাকি’

— কোন্ সময়ে কবি ঘাসে বসে থাকেন? তখন প্রকৃতির কেমন রূপ তাঁর চোখে ধরা পড়ে?

উত্তর: জীবনানন্দ দাশের লেখা আকাশের সাতটি তারা কবিতায় যখন আকাশে সাতটি তারা ফুটে ওঠে তখন কবি ঘাসের উপর বসে থাকেন।

যখন সন্ধ্যা বাংলার বুকে নেমে আসে, তখন কবি টের পান তথা বুঝতে পারেন এক কেশবতী কন্যার আগমন বার্তা। সেই নারী যেন চুল দিয়ে জাম কাঠাল-হিজলের বনে চুম্বনরত। তিনি টের পেয়ে যান নরম ধানের গন্ধ বা কলমির ঘ্রাণে, পুকুরের জলে বা হাঁসের পালকে পল্লিবাংলার আসল রূপ ।

১.৩ ‘কিন্তু বিঘ্নও আছে বহু।

– পত্রলেখক স্বামী বিবেকানন্দ ভগিনী নিবেদিতাকে কীরূপ বিঘ্নের কথা জানিয়েছেন ?

উত্তর : আলোচ্য উক্তিটি স্বামী বিবেকানন্দের চিঠি রচনা থেকে নেওয়া। চিঠি থেকে জানা যায় যে ভগিনি নিবেদিতা ভারত বর্ষের নারী সমাজের কল্যাণ সাধনের জন্য তার দেশ থেকে ভারতবর্ষে আসতে চান। স্বামীজি তাই তাকে নানা বিঘ্নের কথা জানান ।

১. শ্বেতাঙ্গ সম্পর্কে ভারতীয়দের বিরূপ ধারণা।

২.আমাদের দেশের আবহাওয়া তার প্রতিকূল।

৩.ইউরোপীয় সুখ স্বাচ্ছন্দ্য তিনি এই দেশে পাবেন না।

১.৪ ‘নটেগাছটা বুড়িয়ে ওঠে, কিন্তু মুড়য় না।”

— উদ্ধৃতাংশে নটেগাছের প্রসঙ্গ উত্থাপনে ‘আবহমান’ কবিতায় ‘রুপকথা’র আবেশ কীভাবে রচিত হয়েছে, বিশ্লেষণ করো।

উত্তর : নটেগাছ মুড়ানোর প্রসঙ্গ বাংলার এক বিখ্যাত প্রবাদ থেকেই গৃহীত—‘নটেগাছটি মুড়োলো/ আমার কথা ফুরোলো’। কিন্তু কবি বলছেন-না, নটেগাছটি মুড়য়নি, কারণ কথা অনুযায়ী চিরায়ত সত্যের বাণী-মাতৃভূমির প্রতি ফেলে আসা স্মৃতির কথা কোনোদিন ফুরায় না। কবি কল্পনার সাঁকো বেয়ে স্মৃতির হাত ধবে পৌঁছে যান গ্রামজীবনের শৈশবের বেলাভূমিতে।

ঘরের কাছেই উঠান, তার পাশে থাকা লাউমাচা চিরন্তন সত্যের প্রতীক হিসেবে বিদ্যমান। নটেগাছ বুড়য় অর্থাৎ আমাদের বয়স বাড়ে, স্মৃতির ভাণ্ডার বাড়তেই থাকে, কিন্তু তা শেষ হয়ে যায় না, তথা ফুরিয়ে যায় না কখনোই। তেমনিভাবে ফুরিয়ে যায় যাওয়া-আসা বা আসা-যাওয়ার আকাঙ্ক্ষা। বরং দুবন্ত পিপাসা বাড়িয়ে দেয় এই নস্ট্যালজিক স্মৃতিকাতরতা। ঘাসের গন্ধ গায়ে মাখা, আকাশের তারায় তারায় স্বপ্ন এঁকে রাখা, যন্ত্রণার আগুন না-নেভা, দুঃখের বাসি না-হয়ে যাওয়া, সূর্যের ওঠা ও নামা এ সমস্ত কিছুর কিছুই ফুরায় না। কারণ ফুরাতে পারে না চিরন্তন সত্যের রীতি অনুযায়ী। নটেগাছ সেই কারণেই কবির কল্পনায় মুড়িযে যায়নি।

১.৫ ‘….আর আহারের সংস্থান রহিল না।’

– রাধারাণী ও তার মায়ের দুর্গতির চিত্র ‘রাধারাণী’ পাঠ্যাংশে কীভাবে চিত্রিত হয়েছে, তা উদ্ধৃতাংশের আলোকে আলোচনা করো।

উত্তর : জনৈক মামলাবাজ জ্ঞাতির কারণে স্বামীর বাড়ি ভদ্রাসন থেকে বিতাড়িত সম্পূর্ণ সহায়সম্বলহীন রাধারাণীর মা ও রাধারাণীর কথাই উদ্ধৃতিটিতে বলা হয়েছে। রথযাত্রার আগে রাধারাণীর মা খুব অসুস্থ হয়ে পড়ল, একেবারেই শয্যাশায়ী। এই অবস্থায় কাজ করা সম্ভব নয়। অন্যদিকে রাধারাণী ছোটো, তার পক্ষেও উপার্জন অসম্ভব। ঘৰেও সঞ্চিত আহার্য নেই, তাই তাদের আর আহার চলে না।

১.৬ কর্ভাস যে এখন সাধারণ কাকের থেকে নিজেকে আলাদা রাখতে চায়, তার স্পষ্ট প্রমাণ আজকে পেলাম।’ – প্রোফেসর শঙ্কু কীভাবে সেই প্রমাণ পেয়েছেন?

উত্তর : সত্যজিৎ রায়ের লেখা ‘কর্ভাস’ গল্পে প্রফেসার শঙ্কু তার ‘অরনিথন’ যন্ত্র প্রযোগ করার পর লক্ষ করেছিলেন কর্ভাস অন্য কাকের থেকে আলাদা থাকতে চায়,এর প্রমান হিসাবে তিনি লিখেছেন বজ্র-বিদ্যুৎসহ বৃষ্টিপাতে একটি কাক মারা গেলে, সেখানে বহু কাকের সমাগম হলেও কর্ভাস তাদের সঙ্গে শামিল হয়নি। সে একমনে পেনসিল মুখে দিয়ে মৌলিক সংখ্যা লিখে চলেছে 2, 3, 5, 7, 11, 13 প্রভৃতি।

২. নীচের ব্যাকরণগত প্রশ্নগুলির উত্তর দাও :

২.১ মৌলিক শব্দ বলতে কী বোঝ?

উত্তর : যেসব শব্দকে ভাঙা বা বিশ্লেষণ করা যায় না এবং যার সঙ্গে কোনো প্রত্যয়, বিভক্তি বা উপসর্গ যুক্ত থাকে না, তাদের মৌলিক শব্দ বলে।

উদাহরণ: মা, বাবা, বই ইত্যাদি।

২.২ নবগঠিত শব্দকে কয়টি শ্রেণিতে ভাগ করা যায় এবং কী কী?

উত্তর : নবগঠিত শব্দকে সাধারণত দুটি ভাগে ভাগ করা যায়। এগুলোর মধ্যে কিছু হলো অবিমিশ্র শব্দ যেমন অনিকেত, অতিবেক ইত্যাদি। আবার কিছু শব্দ ভিন্ন ভিন্ন ভাষার উপাদানের সংযোগে গঠিত। এগুলোকে মিশ্র শব্দ বা সঙ্কর শব্দ বলে।

যেমন : হেড [ ইংরেজি] + পণ্ডিত [ বাংলা ] = হেডপণ্ডিত।

            হেড [ ইংরেজি ] + মৌলবী [ আরবী] = হেডমৌলবী।

             ফি [ ফারসী ] + বছর [ বাংলা ] =ফি-বছর।

২.৩ তদ্ভব শব্দের দুটি উদাহরণ দাও।

উত্তর : বৌ < বউ < বহু < বধূ,

            দই < দহি < দধি ,

২.৪ ‘দেশি শব্দ’ কে ‘অজ্ঞাতমূল শব্দ’ বলা হয় কেন?

উত্তর : দেশি শব্দ দেশের প্রাচীনতর আদিবাসী দ্রাবিড় গোষ্ঠীর ভাষা। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এই শব্দের মূল পাওয়া যায় না বলে একে অজ্ঞাতমূল শব্দ বলা হয়।

২.৫ তুর্কি এবং ওলন্দাজ শব্দভাণ্ডার থেকে বাংলায় গৃহীত হয়েছে এমন দুটি করে শব্দের উদাহরণ দাও।

উত্তর : তুর্কি :- দারোগা, মুচলেকা

         ওলন্দাজ :- তুরুপ, হরতন।

২.৬ তামিল শব্দভাণ্ডার থেকে বাংলায় এসেছে এমন দুটি শব্দ লেখো।

উত্তর : চুরুট, পিলে ইত্যাদি

২.৭ নির্দেশ অনুযায়ী মিশ্র বা সংকর শব্দ তৈরি করো :

ইংরেজি + বাংলা

হেড + কেরানি = হেডকেরানি।

পোর্তুগিজ  + হিন্দি

পাউ+রুটি=পাউরুটি

তৎসম শব্দ + বিদেশি প্রত্যয়

ধূপ+দানি=ধূপদানি

২.৮ ইংরেজি থেকে অনুবাদের মাধ্যমে বাংলায় গৃহীত হয়েছে এমন দুটি শব্দ উল্লেখ করো।

উত্তর : Wrist Watch = হাত ঘড়ি,

          News paper= সংবাদ পত্র

২.৯ যোগরূঢ় শব্দের দু’টি উদাহরণ দাও।

উত্তর : ‘তুরঙ্গম’- যা তাড়াতাড়ি যায়৷ ঘোড়া,

         বীণাপানি- বীণা ধারণকারী/ সরস্বতী ইত্যাদি।

২.১০ গুণবাচক বিশেষ্যযোগে একটি বাক্য রচনা করো।

উত্তর : সাহস – ছেলেটির সাহস তো কম নয়।

২.১১ ক্রিয়াবিশেষণের দু’টি গঠনরীতি নির্দেশ করো।

উত্তর :

বিভক্তিযুক্ত পদের প্রয়োগ – সে অনায়াসে সমস্যার সমাধান করল।

অসমাপিকা ক্রিয়ার প্রয়োগ – ভালো করে বই পড়া উচিত।

২.১২ কাছের ব্যক্তি বা বস্তুকে নির্দেশ করতে কোন সর্বনাম পদ ব্যবহৃত হয়?

উত্তর: সামীপ্যবাচক সর্বনাম ব্যবহৃত হয়। যেমন- ইনি উনি, এটা সেটা, এই ওই ইত্যাদি।

২.১৩ একটি তৎসম অব্যয় এবং একটি খাঁটি বাংলা অব্যয়ের উদাহরণ দাও।

উত্তর : তৎসম অব্যয় – যদি / যথা/ হঠাৎ

          খাঁটি বাংলা অব্যয়- আচ্ছা / আবার / তবু 

২.১৪ ধাতুর গঠন অনুযায়ী ক্রিয়াপদ কত ধরনের হয়ে থাকে?

উত্তর : ধাতুর গঠন অনুযায়ী ক্রিয়াপদ চার প্রকার

i) মৌলিক ক্রিয়াপদ  ii) সাধিত ক্রিয়াপদ  iii) যৌগিক ক্রিয়াপদ  iv) সংযোগমূলক ক্রিয়াপদ।

Class 9 Model Activity Task English Part 6 September

MODEL ACTIVITY TASK
CLASS – IX
ENGLISH

ACTIVITY 1

Read the passage carefully and answer the following questions:

It had been raining for seven years. Thousands upon thousands of days filled from one end to the other with rain. The days were filled with the gush of water and endless showers. Heavy storms caused tidal waves to come over the islands. A thousand forests crushed under the rain, had grown up a thousand times to be crushed again. This was the way of life forever on planet Venus. Here was located the schoolroom of the children belonging to men and women who came by rockets from Earth. They set up a civilization in this raining world.

Answer the following questions : 

i) How long it had been raining in Venus ?

Ans: It had been raining for seven years in Venus.

ii) What was the way of life in Venus ?

Ans: The days in Venus were filled with the gush of water and endless showers, heavy storms caused tidal waves to come over the islands, a thousand forests crushed under the rain had grown up a thousand times to be crushed again. This was the way of life in Venus.

iii) Who set up a civilization in the “raining world” ?

Ans: In Venus, there was located the schoolroom of the children belonging to men and women who came by rockets from Earth set up a civilization in this raining world.

ACTIVITY 2

Do as directed: 

i) Opening the gate, the man came in. (Change into a compound sentence)

Ans: The man opened the gate and came in.

ii) He was very sorry and left the place. (Change into a simple sentence)

Ans: He was very sorry to leave the place.

iii) Work hard or you may fail. (Change into a complex sentence)

Ans: If you will not work hard you may fail.

iii) He was so tired that he could not walk. (Change into a simple sentence)

Ans: He was too tired to walk.

ACTIVITY 3

Your father has to shift to a different district due to his job requirements. Write a letter to the Headmistress / Headmaster of your school seeking a Transfer Certificate.

To,

The Headmaster,

ABC High School,

Subject: Transfer Certificate

Respected Sir,

With due respect, I beg to state that our family will shift to Malda as my father got a promotion there. My name is Rajib Sen and I recently received the results of my final exam. For me, this is a heartbreaking moment. All of my friends and teachers will be missed. They greatly aided me in expanding my self-awareness and creativity. I’d like to express my gratitude to each and every one of you. I’m writing to let you know that I’ll be continuing my education at Malda Town High School. According to Malda Town High School Admission policy, I must submit my transfer certificate as soon as possible to the office in order to complete my documentation requirements. I’d like you to send me a copy of the Transfer certificate.

                       

                                                    Thank you.

                                               Yours Faithfully,

                                                     Rajib Sen

                                                      Class IX

                                                    Section: A

                                                   Roll No: 15

Class 9 Model Activity Task History Part 6 September

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

নবম শ্রেণি

ইতিহাস

১. ‘ক’ স্তম্ভের সাথে ‘খ’ স্তম্ভ মেলাও:

‘ক’ স্তম্ভ

‘খ’ স্তম্ভ

১.১ ভার্সাই চুক্তি

(ক) ১৯৩৬ খ্রি:

১.২ মহামন্দা

(খ) ১৯১৮ খ্রি:

১.৩ চোদ্দো দফা শর্ত

(গ) ১৯১৯ খ্রি:

১.৪ স্পেনের গৃহযুদ্ধ

(ঘ) ১৯৩৯ খ্রি:

উত্তর:

‘ক’ স্তম্ভ

‘খ’ স্তম্ভ

১.১ ভার্সাই চুক্তি

(গ) ১৯১৯ খ্রি:

১.২ মহামন্দা

(ঘ) ১৯৩৯ খ্রি:

১.৩ চোদ্দো দফা শর্ত

(খ) ১৯১৮ খ্রি

১.৪ স্পেনের গৃহযুদ্ধ

(ক) ১৯৩৬ খ্রি:

 

২. সত্য বা মিথ্যা নির্ণয় করো:

২.১ রাশিয়ার পার্লামেন্ট ডুমা নামে পরিচিত ।

উত্তর: সত্য

২.২ ভাইমার প্রজাতন্ত্র জার্মানিতে গড়ে ওঠা একটি অস্থায়ী সরকার কার্যকর ছিল ১৯১৯ -১৯৩৩ খ্রি:।

উত্তর: সত্য

২.৩ চোদ্দো দফা নীতি ঘোষণা করেন লেনিন ।

উত্তর: মিথ্যা

২.৪ লিগ অব নেশনস গড়ে ওঠে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ।

উত্তর: সত্য

৩. দুটি বা তিনটি বাক্যে উত্তর দাও : 

৩.১ এমস টেলিগ্রাম কী ?

উত্তর : এমস নামক স্থানে ফরাসি রাষ্ট্রদূত বেনেদিতি প্রাশিয়ার রাজা উইলিয়ামের সঙ্গে দেখা করেন এবং ভবিষ্যতে স্পেনের সিংহাসনে প্রাশিয়ার কোনো দাবী থাকবে না এই মর্মে প্রতিশ্রুতি দাবী করেন। রাজা উইলিয়াম এই ঘটনার বিবরণ বিসমার্ককে টেলিগ্রাম করে জানালে বিসমার্ক টেলিগ্রামটি এমনভাবে সংশোধিত করে প্রকাশ করেন যাতে ফরাসিরা মনে করে যে তাদের দূত প্রাশিয়ার রাজা কর্তৃক অপমানিত হয়েছেন। এই ঘটনা এমস টেলিগ্রাম নামে পরিচিত।

৩.২ প্যারি কমিউন গঠনের উদ্দেশ্য কী ছিল ?

উত্তর : ১৭৮৯ সালের বিপ্লবে ফ্রান্সের তৃতীয় সম্প্রদায় বিশেষ করে প্যারিসের দরিদ্র শ্রমিক শ্রেণির বিশেষ ভূমিকা ছিল। বিপ্লবের সময় এই দরিদ্র শ্রমিক শ্রেণীর প্রতিনিধিদের নিয়ে প্যারিসে ১৮৭১ সালে ১৮ই মার্চ গঠিত হয় প্যারি কমিউন। প্যারি কমিউনের উদ্দেশ্য ছিল-

• প্যারিস নগরীর বিপ্লবী পৌরপ্রশাসন পরিচালনা কররা

• প্যারিসের গৌরব ও মর্যাদা বৃদ্ধি করা ।

৪. সাত বা আটটি বাক্য উত্তর দাও : 

জার্মানির ঐক্য আন্দোলনে বিসমার্কের ভূমিকার উল্লেখ করো ।

উত্তর: ১৮৪৮-৪৯ সালে জার্মানিতে জাতীয়তাবাদী ঐক্য আন্দোলনের ব্যর্থতা থেকে কয়েকটি বিষয় প্রমানিত হয়। নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে জার্মানির ঐক্যসাধন সম্ভব নয়, প্রাশিয়ার নেতৃত্বেই জার্মানির ঐক্য সম্ভব। তাই প্রাশিয়ার রাজা প্রথম উইলিয়াম অটোভন বিসমার্ককে প্রধানমন্ত্রী পদে নিযুক্ত করেন।

রক্ত লৌহ নীতি : প্রধানমন্ত্রী বিসমার্কের উদ্দেশ্য অ নীতি ছিল খুব স্পষ্ট। এগুলি হল, তিনি ছিলেন রাজতন্ত্রে বিশ্বাসী এবং প্রাশিয়ার সংসদের বিরোধ দেখা দেয়। এপ্রসঙ্গে বিসমার্ক প্রাশিয়ার সংসদের অর্থ সংক্রান্ত কমিটিতে বলেছিলেন বক্তৃতা বা সংখ্যা গরিষ্ঠ এর মতামত নয় বরং একমাত্র সামরিক শক্তি বা ‘রক্ত ও লৌহ নিতি’-র দ্বারাই সমস্ত সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে তিনি দৃঢ় বিশ্বাস করতেন। বিসমার্কের এই নীতিটি রক্ত ও লৌহ নীতি নামে পরিচিত। প্রাশিয়ার প্রতিনিধি সভার সংখ্যা গরিষ্ঠ এর মতকে উপেক্ষা করেই তিনি সামরিক প্রস্তুতি ছালান এবং পরপর তিনটি যুদ্ধের মাধ্যমে জার্মানির ঐক্য সম্পন্ন করেন।

বিসমার্কের নেতৃত্বে জার্মানির ঐক্য :

• ডেনমার্কের সঙ্গে যুদ্ধ : বিসমার্কের নেতৃত্বে জার্মানির ঐক্যের প্রথম পদক্ষেপ ছিল ডেনমার্কের সাথে প্রাশিয়ার যুদ্ধ। ডেনমার্কের দক্ষিণে শ্লেজউইগ ও হলস্টেইন নামে দুটি ডাচি জার্মানির রাজ্যসীমার মধ্যে অবস্থিত হলেও তা ডেনমার্কের অধীনে ছিল। এই দুটি প্রদেশ দখলের জন্য বিসমার্ক অস্ট্রিয়ার সাথে মিলিত হয়ে ডেনমার্কের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে তাকে অনায়াসে পরাজিত করে। এরপর ভিয়েনার সন্ধি অনুসারে ডেনরাজ ডাচিদ্বয়ের উপর প্রাশিয়া ও অস্ট্রিয়ার মিলিত অধিকার স্বীকার করতে বাধ্য হন কিন্তু স্থান দুইটির ভবিষ্যৎ নিয়ে অস্ট্রিয়া ও প্রাশিয়ার মধ্যে মতভেদ দেখা দিলে ১৮৬৫ সালে গ্যাসটিন চুক্তি দ্বারা একটি সামরিক মীমাংসা হয়। স্থির হয় যে, শ্লেজউইগ থাকবে প্রাশিয়ার অধিপত্যে আর হলস্টেইনের উপর কর্তৃত্ব থাকবে অস্ট্রিয়ার।

• স্যাডোয়ার যুদ্ধ: ১৮৬৬ সালে অস্ট্রিয়া শেজউইগ হলস্টেইনের প্রশ্নটি কনফেডারেশনের ডায়েটের নিকট উপস্থিত করলেন তা গ্যাসটিনের চুক্তি বিরোধী এই অভিযোগে প্রাশিয়া হলস্টেইনে সৈন্য পেরন করে। এর প্রতিবাদে অস্ট্রিয়ার নেতৃত্বে ডায়েট প্রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ অস্ট্রিয়া চূড়ান্তভাবে পরাজিত হয়। এর ফলে কেবলমাত্র অস্ট্রিয়াই নয়, সমগ্র জারমানি প্রাশিয়ার পদানত হয়।

    • সেডানের যুদ্ধের ফলে জার্মান-ঐক্য আংশিকভাবে সম্পন্ন হয়েছিল। বিসমার্ক বুঝেছিলেন যে, জার্মান জাতির সম্পূর্ণ ঐক্যের পথে ফ্রান্সই প্রধান অন্তরায়। তাই ফ্রান্সকে বিচ্ছিন্ন করে ফ্রান্সের বিরুদ্ধ বিসমার্ক যুদ্ধের অজুহাত খুঁজতে থাকেন। শীঘ্রই স্পেনের সিংহাসন নিয়ে ফ্রান্স ও প্রাশিয়ার মধ্যে এক বিবাদ উপস্থিত হয়। এই বিবাদের সূত্র ধরেই এমস টেলিগ্রামকে কেন্দ্র করে বিসমার্ক এমন অবস্থা সৃষ্টি করেন যে, ফ্রান্স নিজেই প্রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে। ইউরোপীয় শক্তিগুলি থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ফ্রান্সে সহজেই প্রাশিয়ার কাছে পরাজিত হতে থাকে। অবশেষে ১৮৭০ সালে সেডানের যুদ্ধে ফ্রান্স সম্পূর্ণ পরাজিত হয়। ফ্রান্স ১৮৭১ সালে অপমানজনক শর্তে ফ্রাঙ্কফুর্টের সন্ধি করতে বাধ্য হয় এবং এই সন্ধি অনুযায়ী ফ্রান্স জার্মানিতে মেটল দুর্গ ও আলসাস লোরেন অঞ্চল দুটি ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়।

Class 9 Model Activity Task Geography Part 6 September

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

নবম শ্রেণি

পরিবেশ ও ভূগোল

১. বিকল্পগুলি থেকে ঠিক উত্তরটি নির্বাচন করে লেখো :

১.১ অক্ষরেখার অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো—

ক) সর্বোচ্চ অক্ষরেখার মান ০°

খ) প্রতিটি অক্ষরেখা মহাবৃত্ত

গ) অক্ষরেখাগুলি পরস্পরের সমান্তরাল

ঘ) প্রতিটি অক্ষরেখার পরিধি সমান

উত্তর: গ) অক্ষরেখাগুলি পরস্পরের সমান্তরাল

১.২ বিদার অগ্ন্যুদ্গমের মাধ্যমে সৃষ্ট ভূমিরূপ হলো—

ক) স্তুপ পর্বত

খ) লাভা মালভূমি

গ) পর্বতবেষ্টিত মালভূমি

ঘ) আগ্নেয়গিরি

উত্তর: ঘ) আগ্নেয়গিরি

১.৩ ঠিক জোড়াটি নির্বাচন করো—

ক) দামোদর নদী – পশ্চিমবঙ্গের উত্তরের পার্বত্য অঞ্চল

খ) কালিম্পং জেলা – সমুদ্র থেকে দুরবর্তী স্থান

গ) পডজল মৃত্তিকা – পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিমের মালভূমি অঞ্চল

ঘ) অ্যালপাইন উদ্ভিদ – সুন্দরবন অঞ্চল

উত্তর: খ) কালিম্পং জেলা – সমুদ্র থেকে দুরবর্তী স্থান

২. শূন্যস্থান পূরণ করো :

২.১ দ্রাঘিমারেখাগুলি নিরক্ষরেখাকে __________ কোণে ছেদ করেছে।

উত্তর: সমকোণে

২.২ আবহবিকারগ্রস্ত শিলা চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে মূল শিলার উপর যে শিথিল আবরণ তৈরি করে তাকে _________ বলে।

উত্তর: রেগোলিথ

২.৩ দার্জিলিং জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত একটি নিত্যবহ নদী হলো ________।

উত্তর: তিস্তা 

৩. সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও :

৩.১ আবহবিকারে প্রাণীদের ভূমিকা উদাহরণসহ ব্যাখ্যা করো।

উত্তর: ভূমির আবহবিকারে প্রাণীদের অংশগ্রহণ অত্যন্ত ভাবে গুরুত্বপূর্ণ। যান্ত্রিক ও রাসায়ানিক উভয় পদ্ধতিকে অবলম্বন করে প্রাণীরা আবহবিকারে অংশগ্রহণ করে।

(i) যান্ত্রিক পদ্ধতি : ইঁদুর, খরগোশ, খেকশিয়াল, প্রেইরি কুকুর, পেঁচা ইত্যাদি শিলার মধ্যে গর্ত খুঁড়ে বাসা তৈরি করে। শামুক চুনাপাথরের মধ্যে গর্ত তৈরি করতে পারে।

(ii) রাসায়ানিক পদ্ধতি : পশু-পাখির বর্জ্য পদার্থ শিলার রাসায়নিক আবহবিকার ঘটায়। প্রাণী মারা যাওয়ার পর প্রাণীদের থেকে নির্গত জলীয় পদার্থের মাধ্যমে শিলার রাসায়নিক আবহবিকার ঘটে। জীবাণু, কীট ও ব্যাকটেরিয়া শিলার মধ্যে রাসায়ানিক আবহবিকার ঘটাত।

৩.২ ‘পৃথিবীর বেশিরভাগ মানুষ সমভূমি অঞ্চলে বসবাস করেন।’ – ভৌগোলিক কারণ ব্যাখ্যা করো।

উত্তর: পৃথিবীর বেশিরভাগ মানুষ সমভূমিতে তাদের আবাস্থল তৈরি করেছে। এর কারণগুলি হল-

(i) কৃষি : সমতল ভূমি, উর্বর মাটির সুবিধার কারণে সমভূমিতে কৃষিকাজ খুব ভালো হয় ।

(ii) সভ্যতার বিকাশ : মানুষের প্রধান তিনটি চাহিদার সমভূমিতে সহজে মেটানো সম্ভব বলে সভ্যতার আদিকালে নদী অববাহিকাকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠে ছিল বিভিন্ন সভ্যতা ।

(iii) উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা : সমভূমিতে সড়ক, রেল ও জলপথ ব্যবস্থা অতি সহজেই গড়ে তোলা যায়।

(iv) ব্যবসা-বানিজ্যের বিকাশ : ব্যবসা-বাণিজ্যের সুবিধার্থে সমভূমিকে কেন্দ্র করে শিল্পকেন্দ্র গুলি গড়ে উঠেছে। ফলে মানুষ সেই শিল্পকেন্দ্রকে কেন্দ্র করে কাজের সুবিধার্থে বসতি স্থাপন করেছে।

(v) জনবসতি : জীবনধারণ সমভূমিতে সহজসাধ্য। মানুষ তার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় রসদ সমভূমি থেকে সবথেকে সহজে ও দ্রুত সংগ্রহ করতে পারে। এই কারণে সমভূমিতে জন ঘনত্ব সর্বাধিক।

৪. পশ্চিমবঙ্গের জলবায়ু কীভাবে মৌসুমী বায়ু দ্বারা প্রভাবিত হয় ? 

উত্তর: পশ্চিমবঙ্গের জলবায়ুর ওপরে মৌসুমি জলবায়ুর প্রভাব যথেষ্ট লক্ষণীয়।

ক) ঋতু পরিবর্তনের ওপর প্রভাব : মৌসুমি বায়ুর আগমন ও প্রত্যাগমনের উপর ভিত্তি করে এরাজ্যে ঋতু পরিবর্তন ঘটে এবং আগমন ও প্রত্যাগমন এর উপর ভিত্তি করে বছরটিকে চারটি ঋতুতে ভাগ করা হয়েছে।

খ) বৃষ্টিপাতের উপর প্রভাব : পশ্চিমবঙ্গের মোট বৃষ্টিপাতের ৯০ ভাগ ঘটে বর্ষকালে মৌসুমি বায়ুর প্রত্যাগমন কালে বাতাসে জলীয় বাষ্প কম থাকে বলে বৃষ্টিহীন।

গ) বায়ুপ্রবাহ : মৌসুমি বায়ুর আগমন কালে বায়ু দখিণের সমুদ্র থেকে উত্তর দিকে বয়ে যায় এবং প্রত্যাগমন কালে স্তল ভাগ থেকে দক্ষিণে সমুদ্রের দিকে যায়।

ঘ) উষ্ণতার প্রভাব : মৌসুমি বায়ুর আগমনের কারণে আকাশ মেঘে ঢেকে জায়্য এবং বৃষ্টি হয় বলেই উষ্ণতা যা হওয়ার কথা তার থেকে কম হয় অনেকটা। আবার মৌসুমি বায়ুর প্রত্যাগমণের সময় আকাশ কিছুটা মেঘলা হয়ে থাকে বলে গড় উষ্ণতা বর্ষাকালের থেকে সামান্য বৃদ্ধি পায় ।

ALL Class ALL Model Activities Click Here
 Class 6 Model Activity Task Part 7 (Bengali, English, History, Geography )Click Here
 Class 6 Model Activity Task Part 7 (Science, Mathematics, Health & Physical Education)Click Here
 Class 7 Model Activity Task Part 7 (Bengali, English, History, Geography )Click Here

 Class 7 Model Activity Task Part 7 (Science, Mathematics, Health & Physical Education)

Click Here
 Class 8 Model Activity Task Part 7 (Bengali, English, History, Geography )Click Here
 Class 8 Model Activity Task Part 7 (Science, Mathematics, Health & Physical Education)Click Here
Class 9 Model Activity Task Part 7 (Bengali, English, History, Geography )Click Here
Class 9 Model Activity Task Part 7 (Science, Mathematics, Health & Physical Education)Click Here
Class 10 Model Activity Task Part 7 (Bengali, English, History, Geography )Click Here
Class 10 Model Activity Task Part 7 (Science, Mathematics, Health & Physical Education)Click Here

Leave a Comment

Your email address will not be published.